রবিবার, ২১ জানুয়ারী ২০১৮ ০৬:৫৪:১১ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
সোমবার, ০৯ মার্চ, ২০১৫, ০৫:৩৭:১৫
Zoom In Zoom Out No icon

কৃষকের ভাগ্য বদলাবে প্রযুক্তি

কৃষকের ভাগ্য বদলাবে প্রযুক্তি

চট্টগ্রাম:  আত্যাধুনিক প্রযুক্তিতে বোরো ধানের আবাদ করেছে চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ের কৃষকেরা। সোনালী ফসলে ভাগ্য বদলের আশার আলো দেখছেন তারা । কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের সহযোগিতায় কৃষকরা আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে ব্যাপকভাবে বোরো ধানের আবাদ করে ভাগ্য বদলের স্বপ্ন বুনছেন।


এবার বোরো মৌসুমে উপজেলার ১৬টি ইউনিয়ন ও ২টি পৌরসভায় ২২শ’ হেক্টর জমিতে ধানের আবাদ হয়। ফলন উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ১২ হাজার ৩৫২ মেট্রিক টন ধান।


উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. শাহ আলম জানান, আধুনিক প্রযুক্তিতে ২২শ’ হেক্টর জমিতে হাইব্রিড ও উফশী ধানের আবাদ হয়েছে। অধিক উৎপাদনের লক্ষ্যে উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তারা মাঠ পর্যায়ে সার্বক্ষণিক ধান ক্ষেতে তদারকি করে যাচ্ছেন। বর্তমানে যে পরিমাণ জমিতে বোরো ধানের চাষ হয়েছে অনুকূল আবহাওয়া ও প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হলে এবার উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যাবে।


মিরসরাই উপজেলা উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মো. আইয়ুব আনসারী ও নজরুল ইসলাম জানান, চাষাবাদের আধুনিক প্রযুক্তি ও কলা কৌশলে স্বল্প ব্যয়ে সর্বোচ্চ উৎপাদন নিশ্চিত করার লক্ষ্যে বোরো মৌমুসের প্রারম্ভে উপজেলা ও মাঠ পর্যায়ে চাষিদের দফায় দফায় প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়।


চলতি মৌসুমে ১৬ নভেম্বর ও  ১৭ নভেম্বর আধুনিক প্রযুক্তিতে চাষাবাদের লক্ষ্যে এডব্লিউডি প্রযুক্তি এবং ২৯ ও ৩০ নভেম্বর কম্পোস্ট/কুইক কম্পোস্ট সার তৈরি ও ব্যবহারের চাষিদের প্রশিক্ষণ দেয় উপজেলা কৃষি সম্প্রাসরণ অধিদপ্তর।


কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের ভারপ্রাপ্ত উপ-সহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা কাজী মো. নুরুল আলম জানান, এবার ২২শ হেক্টর জমিতে হাইব্রিড ও উফশী ধানের আবাদ হয়। চলতি বছর হাইব্রিড জাতের হীরা-১. এসিআই-১, এসিআই সেরা, এসএলএইটএইচ, ময়না, টিয়া ধান কৃষকেরা বেশি রোপন করেছে।


অপরদিকে উফশী ব্রি ধান ২৮, ২৯, ৪৭, ৫০, বিআর ৩, ১২,১৫,২০,পূর্বাচী, বেনম্বর, বিনা-৮, বিনা-১০ জাতের ধান চাষ হয়েছে। উফশী ব্রিধান-৬৪ জাতের ধান উপজেলার ১নম্বর করেরহাটে ইউনিয়নের ঘেড়ামারা এলাকার ১ হেক্টর জমিতে পরীক্ষামূলক চাষ শুরু হয়েছে।


আধুনিক পদ্ধতিতে বোরো চাষের মডেল প্রযুক্তি কর্ণার উপজেলার ৮নম্বর দুর্গাপুর ইউনিয়নের হাজীশ্বরাই ব্লক।  গোপালপুর, জনার্দ্দনপুর, শিকার জনার্দ্দনপুর, শিকারপুর, মুরালীপুর গ্রামে আধুনিক প্রযুক্তিতে চাষাবাদে কৃষদের সার্বক্ষণিক মনিটরিং করে যাচ্ছেন উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা এ.এফ.এম সামসুল আলম।


তিনি জানান, এখানে আধুনিক প্রযুক্তিতে ৬৬৭ হেক্টর জমিতে চাষাবাদ হয়েছে। জৈব সার, সুষমসার ব্যবহার, সঠিক বয়সের চারা, সারিতে চারা রোপন, গুঁটি ইউরিয়া প্রয়োগ, এলসিসি, এডব্লিউডি ও পার্চিং ব্যবহার প্রযুক্তিতে কৃষকরা আবাদ করছে।


উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মনজুর হায়দার বলেন, রায়পুর ব্লকের উত্তর দুর্গাপুর, কালীতল, তেমুহনী, রায়পুর এলাকায় ১০০ হেক্টর আধুনিক প্রযুক্তিতে কৃষকরা বোরো ফসলের আবাদ করেছেন। কোনো ধরনের প্রাকৃতিক দুযোর্গ না হলে ভালো ফলন পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।


শিকারপুর গ্রামের কৃষক স্বপন চন্দ্র দে আধুনিক প্রযুক্তিতে চলতি মৌসমে ৩ হেক্টর  জমিতে ব্রি ধান ২৮, ব্রি ধান ৪৭ জাতের বোরো চাষ করেছেন। গত বছরও তিনি একইভাবে ২ হেক্টর জমিতে বোরো ধান করেছিলেন। তিনি আশা করছেন গত বছরের তুলনায় এবারে ধানের সর্বোচ্চ ফলন পাওয়া যাবে।

নেশন নিউজ / টিআই

 

এ রকম আর ও খবর



বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি  .  জাতীয়  .  স্বাস্থ্য  .  দেশ  .  লাইফস্টাইল  .  ফিচার  .  বিচিত্র  .  আন্তর্জাতিক  .  রাজনীতি  .  শিক্ষাঙ্গন  .  খেলাধুলা  .  আইন-অপরাধ  .  বিনোদন  .  অর্থনীতি  .  প্রবাস  .  ধর্ম-দর্শন  .  কৃষি  .  রাজধানী  .  শিরোনাম  .  চাকরি
Publisher :
Copyright@2014.Developed by
Back to Top