সোমবার, ২৫ জুন ২০১৮ ০২:১৮:১৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
বিশ্বের সবচেয়ে প্রবীণ প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন মাহাথিরবজ্রপাতে মৃত্যু থেকে রক্ষা পেতে হলে করনীয় কি ?পটুয়াখালীর তরুণের চালকবিহীন গাড়ি আবিষ্কার স্পেনে ছাত্রলীগের নতুন কমিটি ঘোষনাতাবলিগ জামাতের সাদ পন্থী ও তার বিরোধী গ্রুপের সংঘর্ষডিইউজে নির্বাচনে গনি - শহিদ পরিষদের অবিস্মরনীয় জয়কোটা সংস্কার আন্দোলনের বিজয় কেউ ঠেকাতে পারবে না: ডাকসুর সাবেক চারভিপি।সন্তান পেটে রেখেই সেলাই, দুই লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দাবিসকল সরকারি চাকরি থেকে স্বাধীনতাবিরোধীদের সন্তানদের বরখাস্তের দাবিদি স্টুডেন্ড’স ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন ঢাকা মহানগরী উত্তরের বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠান সম্পন্ন।
মঙ্গলবার, ২৬ ডিসেম্বর, ২০১৭, ০২:৩৮:১৮
Zoom In Zoom Out No icon

বাংলাদেশ-ভারতের বন্ধুত্বের সোনালি অধ্যায় চলছে: হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা

বাংলাদেশ-ভারতের বন্ধুত্বের সোনালি অধ্যায় চলছে: হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সময় দু’দেশের উন্নয়ন ও বন্ধুত্বের সোনালি অধ্যায় চলছে বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় হাই কমিশনার হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা। সোমবার সন্ধ্যায় ঢাকার জাতীয় জাদুঘরে বাংলাদেশের ৪৬তম বিজয় দিবস উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা বলেন, বাংলাদেশ ও ভারতের  মানুষের মধ্যে যোগাযোগ আরও বাড়ানোর উপর আমরা গুরুত্ব দিয়েছি। ঢাকা-কলকাতা মৈত্রী ট্রেন এবং খুলনা-কলকাতা বন্ধু ট্রেনে চালু রয়েছে। যাতায়াত ও সীমান্ত চেকিং সহজ করা হয়েছে। দু’দেশের মধ্যকার বন্ধুত্ব আরও দৃঢ় হবে।

ভারতীয় হাই কমিশনার বলেন, বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের বিজয় উৎসব ভারত-বাংলাদেশ উভয়ই উদযাপন করে। এই বিজয় উৎসব উদযাপন করে উভয় দেশই গর্ববোধ করে। গণতন্ত্র, ধর্মনিরপেক্ষতার জন্য এদেশের মানুষ যুদ্ধ করেছিল। মুক্তিযুদ্ধে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়ে ভারতের অনেক সেনা জীবন দিয়েছিলেন।

তিনি বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও ইন্দিরা গান্ধী দু’দেশের মধ্যে বন্ধুত্বের বিশেষ বন্ধন তৈরি করেন। বর্তমানে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সেই বন্ধুত্বের সম্পর্ক এক উচ্চমাত্রায় নিয়ে গেছেন। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ও কাজী নজরুল ইসলামের সাহিত্যকর্ম দু’দেশের সংস্কৃতিকে ধারণ করে। ভারত ও বাংলাদেশ পৃথিবীতে দ্রুততার সঙ্গে উন্নয়ন করে স্থান করে নিয়েছে।’

শ্রিংলা বলেন, ‘দুই দেশের গন্তব্য একই। আর্থসামাজিক-সাংস্কৃতিক বিষয়গুলো আন্তসম্পর্কিত। দুই দেশ যা করে, তা নিজেদের ভালোর জন্যই করে।’

বাংলাদেশ-ভারত ফ্রেন্ডশিপ সোসাইটি আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। সম্মানিত অতিথির বক্তব্য রাখেন জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক সঞ্জয় কে ভরদ্বাজ। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী সমিতির সভাপতি এ কে আজাদ চৌধুরী, স্বাগত বক্তব্য দেন সমিতির সাধারণ সম্পাদক সুবীর কুশারী। সূত্র: তেহরান 

এ রকম আর ও খবর



বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি  .  জাতীয়  .  স্বাস্থ্য  .  দেশ  .  লাইফস্টাইল  .  ফিচার  .  বিচিত্র  .  আন্তর্জাতিক  .  রাজনীতি  .  শিক্ষাঙ্গন  .  খেলাধুলা  .  আইন-অপরাধ  .  বিনোদন  .  অর্থনীতি  .  প্রবাস  .  ধর্ম-দর্শন  .  কৃষি  .  রাজধানী  .  শিরোনাম  .  চাকরি
Publisher :
Copyright@2014.Developed by
Back to Top