শনিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৮ ১০:৫১:৩৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
বৃহস্পতিবার, ১৯ জানুয়ারী, ২০১৭, ০৬:৫২:০৪
Zoom In Zoom Out No icon

শেষ মুহূর্তে সূচক বেড়েছে ডিএসইতে

শেষ মুহূর্তে সূচক বেড়েছে ডিএসইতে

সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে বৃহস্পতিবার লেনদেন শেষে দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান সূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের তুলনায় দশমিক ৫৬ শতাংশ বেড়েছে। তবে অপর বাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সূচকের পতন হয়েছে। ফলে পতনের একদিনের পরই ডিএসইতে সূচক ঊর্ধ্বমুখী হলেও, সিএসইতে টানা দুই কার্যদিবস পতন ঘটলো।
 
বাজার পর্যালোচনায় দেখা যায়, বৃহস্পতিবার ডিএসইতে মূল্যসূচকের নিম্নমুখী প্রবণতায় লেনদেন শুরু হয়। প্রথম সাড়ে ৩ ঘণ্টা মূল্যসূচক ঋণাত্মকই থাকে। তবে শেষ আধাঘণ্টার লেনদেনে সূচক ঊর্ধ্বমুখী হয়।
 
এদিন লেনদেনের প্রথম ১০ মিনিটেই ডিএসইএক্স আগের কার্যদিবসের তুলনায় ৩৬ পয়েন্ট কমে যায়। পরের ১০ মিনিটে সূচক কিছুটা ঊর্ধ্বমুখী হয়। তবে এরপর আবার নিম্নমুখী হয়ে পড়ে।
 
বেলা ১১টায় ডিএইএক্স কমে ২৭ পয়েন্ট এবং দুপুর ১২টায় কমে ৩৭ পয়েন্ট। সূচক টানা নিম্নমুখী থাকায় দুপুর ১টায় ডিএইএক্স আগের দিনের তুলনায় ৫১ পয়েন্ট কমে যায়। দুপুর ২টায় কমে ১৫ পয়েন্ট।
 
এরপর সূচক কিছুটা ঊর্ধ্বমুখী হয়ে দুপুর ২টা ২০ মিনিটে ডিএসইএক্স আগের দিনের তুলনায় ৬ পয়েন্ট বেড়ে যায়। তবে শেষ ১০ মিনিটের লেনদেনে সূচক কিছুটা নিম্নমুখী হওয়ায় দিন শেষে ডিএসইএক্স আগের দিনের তুলনায় দশমিক ৫৬ পয়েন্ট কমে ৫ হাজার ৫৩৪ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে।
 
বৃহস্পতিবার মূল্য সূচকের পাশাপাশি ডিএসইতে কমেছে লেনদেনের পরিমানও। দিন শেষে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে মোট ১ হাজার ৪০৮ কোটি ৭৪ লাখ টাকার শেয়ার। যা আগের কার্যদিবসের তুলনায় ৫৮০ কোটি ৫৮ লাখ টাকা কম।
 
ডিএসইতে লেনদেন হওয়া ৩২৮টি কোম্পানির শেয়ার ও ইউনিটের মধ্যে ৯৩টির দাম বেড়েছে। অপরদিকে কমেছে ২০৫টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩০টি কোম্পানির শেয়ারের দাম।
 
আজ টাকার অঙ্কে ডিএসইতে সবচেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছে বেক্সিমকোর শেয়ার। এদিন কোম্পানির মোট ৫৬ কোটি ৬ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। লেনদেনে দ্বিতীয় স্থানে থাকা ইফাদ অটোসের ৫২ কোটি ২৯ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। ৪৪ কোটি ৫১ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনে তৃতীয় স্থানে রয়েছে বারাকা পাওয়ার।
 
লেনদেনে এরপর রয়েছে- আর এ কে সিরামিক, বাংলাদেশ বিল্ডিং সিস্টেম, সিটি ব্যাংক, লংকা-বাংলা ফাইন্যান্স, একমি ল্যাবরেটরিজ, ন্যাশনাল ব্যাংক এবং ন্যাশনাল পলিমার।
 
এদিন ডিএসইতে ‘এ’ গ্রুপের ২৬৫টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এরমধ্যে দাম বেড়েছে ৭৬টির, কমেছে ১৬৩টির এবং অপরিবর্তীত রয়েছে ২৬টির।
 
আর ‘জেড’ গ্রুপের লেনদেন হওয়া ৪৫টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ১০টিরই দাম আগের কার্যদিবসের তুলনায় বেড়েছে। অপরদিকে কমেছে ৩২টির এবং অপরিবর্তিত আছে ৩টির দাম।
 
এছাড়া ‘বি’ গ্রুপের লেনদেন হওয়া ১৬টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৭টির দাম বেড়েছে, ৮টির কমেছে এবং ১টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। ‘এন’ গ্রুপের লেনদেন হওয়া ২টিরই দাম কমেছে।
 
দেশের অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সিএসসিএক্স সূচক ১ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১০ হাজার ২৮৬ পয়েন্টে। এদিন সিএসইতে মোট ৮৪ কোটি ৭০ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে।
 
সিএসইতে লেনদেন হওয়া ২৬৬টি ইস্যুর মধ্যে দাম বেড়েছে ৬৯টির, কমেছে ১৭৩টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৪টির।

এ রকম আর ও খবর



বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি  .  জাতীয়  .  স্বাস্থ্য  .  দেশ  .  লাইফস্টাইল  .  ফিচার  .  বিচিত্র  .  আন্তর্জাতিক  .  রাজনীতি  .  শিক্ষাঙ্গন  .  খেলাধুলা  .  আইন-অপরাধ  .  বিনোদন  .  অর্থনীতি  .  প্রবাস  .  ধর্ম-দর্শন  .  কৃষি  .  রাজধানী  .  শিরোনাম  .  চাকরি
Publisher :
Copyright@2014.Developed by
Back to Top