Nationnews24.com | Leading bangla online newsporlal in bangladesh.
বিশ্বাসই করতে পারছেন না অপু বিশ্বাস
মঙ্গলবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০১৭ ০৮:৩১ পূর্বাহ্ন

Nationnews24.com | Leading bangla online newsporlal in bangladesh.

নিজের তালাকের সংবাদ যেন বিশ্বাসই করতে পারছেন না চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাস। সোমবার দুপুরের দিকেই জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাস তার কাছে তালাকনামা পাঠানোর খবর শুনতে পান। মুসলিম রীতি মেনে বিয়ের সময় শাকিবের সাথে শর্ত অনুযায়ী গৃহিনী হয়ে না থাকার কারণে অপুকে তালাকনামা পাঠিয়েছেন শাকিব খান। এ বিষয়ে অপু বিশ্বাস সোমবার জানিয়েছেন, এমন কোনো চিঠি তিনি এখনও হাতে পাননি।

অপু বিশ্বাস জানান, গত মাসে পুত্র আব্রামকে নিকেতনের বাসায় রেখে ভারতে যাওয়া নিয়ে শাকিবের সাথে নতুন করে যে টানাপোড়েনের সৃষ্টি হয়েছিল, অপুর ভাষায় সেটিও এখন ঠিক হয়ে গেছে। এ ঘটনার কয়েকদিন পর অপু তার পুত্রকে নিয়ে শাকিবের গুলশান ২ এর বাসায়ও গিয়েছেন। সেদিন তার শ্বশুর-শাশুড়ির সঙ্গে তার ভালোভাবেই কথা হয়েছে। আব্রাম তার বাবার সঙ্গে রাতে ঘুমিয়েছে। তখন শাকিবকে তার কাছে একজন দায়িত্ববান বাবা বলেই মনে হয়েছে। সে সময়কার প্রসঙ্গ টেনে অপু এও বলেছেন, তখন শাকিবের মধ্যে স্ত্রী ও সন্তানের বিষয়ে তার মধ্যে ইতিবাচক পরিবর্তনও দেখেছেন। কিন্তু গণমাধ্যমে প্রকাশিত তাদের ডিভোর্সের খবর এখনও বিশ্বাস হচ্ছে না তার!

জানা গেছে, নানা কারণেই অপুর ওপর বিরক্ত ছিলেন শাকিব খান। এ বিরক্তি থেকে অনেক আগেই ডিভোর্সের চিঠিতে স্বাক্ষর করেন শাকিব খান। কিন্তু পাঠানো হয়নি অপু বিশ্বাসের কাছে। একথা জানান, নায়কের ঘনিষ্ঠ বন্ধু ও প্রযোজক মোহাম্মদ ইকবাল। গত ১ ডিসেম্বর ভারতের হায়দরাবাদ গিয়েছেন শাকিব খান। সেখানকার রামুজি ফিল্ম সিটিতে ‘নোলক’ নামের একটি ছবির শুটিংয়ে এখন ব্যস্ত রয়েছেন তিনি। ৩০ ডিসেম্বর পর্যন্ত চলবে এই ছবির শুটিং। সেখানে যাওয়ার আগেই তালাকনামায় সই করেন শাকিব।

শাকিবের আইনজীবী সিরাজুল ইসলাম জানান, ‘তালাক নোটিশে দুটি কারণ দেখিয়েছেন শাকিব। প্রথম অভিযোগ হিসেবে তিনি উল্লেখ করেছেন, অপু তাদের সন্তানকে বাসার কাজের লোকের কাছে রেখে, কথিত বয়ফ্রেন্ডকে নিয়ে ভারতে বেড়াতে গিয়েছিলেন। দ্বিতীয় অভিযোগ প্রসঙ্গে তিনি বলেছেন, যেহেতু অপু তার নির্দেশ মেনে চলেন না, ফলে তিনি এই বিবাহ বিচ্ছেদ চান।’

জানা গেছে, গত ৩০ নভেম্বর শাকিবের পক্ষ থেকে আইনজীবী তালাকের নোটিশটি পাঠান। কিন্তু অপু বিশ্বাস নোটিশটি গ্রহণ করেননি। অপুর নিকেতনের বাসা ছাড়াও তালাকের এই নোটিশটি ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়রের কার্যালয় এবং অপুর বগুড়ার বাসার ঠিকানাতেও পাঠানো হয়েছে। কিন্তু এ তালাক কার্যকর হবে নোটিশ পাঠানোর তারিখ থেকে তিন মাস পর। আর বিয়ের দেনমোহর বাবদ সাত লাখ টাকা অপুকে পরিশোধ করবেন শাকিব খান। এছাড়া তিনি একমাত্র পুত্র সন্তান আব্রাম খান জয়ের ভরণ-পোষণ করবেন।

আইনজীবী সিরাজুল ইসলাম জানান, নিয়ম মেনে ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের সালিশি পরিষদ দুজনকে ডেকে নিয়ে বসবেন, যেন সংসারটি ভেঙে না যায়। যদি শাকিব খান তারপরও মনে করেন এটাই তার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত, তবে ৯০ দিন পর তালাকনামা স্বয়ংক্রিয়ভাবে কার্যকর হবে।